মুখবন্ধ

যুগে যুগে মহা প্রভু আল্লাহ্ রাব্বুল ইজ্জত মানুষকে স্বীয় 'আল্লাহ্' তত্ত্ব তথা স্রষ্টাত্ব ও সৃষ্টি রহস্যের মূল নকশা 'মোহাম্মদ' পরিচিতি ও ইহ-লৌকিক জীবনলীলা সাঙ্গ করে তারই (আল্লাহ্র) জাতে হক্বে সফল প্রত্যাবর্তনের রাহ তথা রাস্তা দেখাতে প্রেরণ করেছেন বহু নবী রাসুল। আল্লাহ তায়ালার সৃষ্টি বাসনার মূল রুপ হযরত মোহাম্মদ (দঃ)। সৃষ্টির বৈচিত্রময় ধারাবাহিকতায় হযরত আদম (আঃ) নামে খোদায়ী রুপের প্রথম মানবীয় প্রকাশ। যা ছাকিয়ে কাউছার- সাফায়ে মা'হাশর হযরত মোহাম্মদ (দঃ) এর মানবীয় অস্থিত্ব মাঝে সর্বাঙ্গীন পূর্ণতা প্রাপ্ত হয়। আল্লাহ্ প্রেরিত উক্ত নবীবর হযরত মুহাম্মদ (দঃ) এর ওফাত পরবর্তী হেদায়াতের ধারাবাহিকতা চালু থাকে খেলাফত বা প্রতিনিধিত্বের ধারায় বেলায়ত প্রক্রিয়ায়। সে বেলায়ত প্রক্রিয়ার অনুক্রমিক ৩৭তম প্রতিনিধি হিসাবে খেলাফত প্রাপ্ত হন খাতেমুল অলদ- হযরত গাউছুল আজম- শাহ ছুফি মাওলানা ছৈয়দ আহমদ উল্লাহ মাইজভান্ডারী (কঃ)।

ছাহেবুল অজুদুল কোরআন- শাহ ছুফি হযরত মৌলানা ছৈয়দ ছালেকুর রহমান শাহ রাহে ভান্ডারী (কঃ) হলেন গাউছে মাইজভান্ডারীর অসংখ্য খলিফাগণের মধ্যে স্বীয় জ্যোতিতে ভূবন আলোকারী এক অনন্য নক্ষত্র। গাউছে মাইজভান্ডারী হযরত কেবলা (কঃ) যাকে নিজে 'দুল্হা' বলে সম্বোধন করেছিলেন। তিনি দেশ ও দেশের বাইরে অগণিত মানুষকে কলেমার দীক্ষা বা বাইয়্যাত দান করেছেন। তার এ কার্যক্রম যুগোত্তর পরচালনায় জন্য তিনি বাংলাদেশ, মায়ানমার, বেলজিয়াম ও ভারতে বহু প্রতিনিধি নিযুক্ত করেন।

ঐ সকল পূণ্যাত্মা প্রতিনিধিগণের মাঝে আজাদে মোজাদ্দেদে জামান- গাউছুল আজম- শাহ ছুফি মৌলানা ছৈয়দ আবদুল মালেক শাহ রাহে ভান্ডারী (কঃ) এর নাম স্বীয় মহিয়াময় চির অম্লান। তিনি বসবাস করতেন বোয়ালখালী থানার কধুরখীল ইউনিয়নে। সেখানেই আজ হতে ৫০ বছরেরও বেশি কাল পূর্বে স্থাপিত হয় দুল্হায়ে হযরত- হযরত মৌলানা ছৈয়দ ছালেকুর রহমান রাহে ভান্ডারী (কঃ) এর বাংলাদেশস্থ একমাত্র খানকাহ। পরবর্তী কালে তা আজাদে মোজাদ্দেদে জামান- হযরত মৌলানা ছৈয়দ আব্দুল মালেক শাহ রাহে ভান্ডারী (কঃ) এর সুউচ্চ মানের আধ্যাত্মিক সাধনার স্থান হিসাবে বর্তমানে রাহে ভান্ডার কধুরখীল দরবার শরীফ নামে কলেমা তৌহিদ তথা ওয়াহদাতুল অজুদের প্রত্যক্ষ দীক্ষা পরিশিলীত ধারায় বিশ্বময় ছড়িয়ে দেয়ার মূল কার্যক্ষেত্র বলে বিবেচিত হচ্ছে আশেক কূলে, তারই একমাত্র প্রতিনিধি- রাহে ভান্ডার দর্শনের বর্তমান দীক্ষাগুরু- উন্মুক্ত বেলায়ত যুগে কলেমার প্রত্যক্ষ দীক্ষা দাতা- খোদায়ী জ্ঞানপূর্ণ মহা মহিমান্বিত প্রেম মূরতী- শাহছুফি হযরত মৌলানা ছৈয়দ জাফর ছাদেক শাহ (মাঃজিঃআঃ) এর আত্মনিবিষ্ট সাধনার বদৌলতে। তিনি বর্তমানে প্রতিনিয়ত শত শত তমাসাচ্ছন্ন মূর্খ রিপুকে করুণা বারী শরাবান তহুরা পান করিয়ে মুহম্মদী রূপ দানে অহরহ আল্লাহর স্মরণ সংযোগে মে'রাজ বা রব দর্শনের পাথেয় দান করে মুক্তাকীনের দল ভূক্ত করছেন।

সার্বিক বিচারে প্রতিয়মান হয় যে, উল্লেখিত প্রতিনিধিগণের প্রত্যেকেরই দরবারে একই উদ্দেশ্যে কার্যক্রম পরিব্যপৃত হয়েছে স্থানিক ও কালিক প্রভাব সিদ্ধ যুগোপযোগী কর্ম ও ভাব ধারায় নামের বিভিন্নতায়, যুগপরিক্রমায় স্ব-ধারা বা সিলসিলা/তরীকার সুনির্দিষ্ট প্রতিনিধি তথা দীক্ষা গুরুর প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে । যা রাহে ভান্ডার কধুরখীল দরবার শরীফের বর্তমান যুগে বাস্তবায়িত হচ্ছে বেলায়ত কাননে আজাদীর দীক্ষাগুরু- পাপতাপ হারী- হযরত মৌলানা ছৈয়দ আব্দুল মালেক শাহ (কঃ) রাহে ভান্ডারীর একমাত্র খলিফা আমাদের মূর্শীদ- মৌলা বাবাজান- উন্মুক্ত বেলায়ত যুগে কলেমার প্রত্যক্ষ দীক্ষাদাতা- শাহছুফি হযরত মৌলানা ছৈয়দ জাফর ছাদেক শাহ (মাঃজিঃআঃ) আল রাহে ভান্ডারীর প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে রাহে ভান্ডার কধুরখীল দরবার শরীফ।

রাহে ভান্ডার দরবার শরীফ নাম করনটিও এখানে আলোচনার অপরিসীম গুরুত্ব রাখে। দুল্হায়ে হযরত মৌলানা ছৈয়দ ছালেকুর রহমান শাহ রাহে ভান্ডারী (কঃ) তাঁর দরবারকে নিজেই রাহে ভান্ডার নামকরন করেন। এখানে 'রাহ্' অর্থ পাথেয় বা রাস্তা, 'এ' অর্থ এর এবং 'ভান্ডার' অর্থ সমৃদ্ধ আধার বা স্থান (জ্ঞানের উৎস বা ধনাগার)। অতএব শাব্দিক ও তাত্ত্বিক বিবেচনায় রাহে ভান্ডারের অর্থ দাঁড়ায় জ্ঞানের উৎসের পাথেয় বা পথ। এ দরবারের আলোচ্য বা চর্চার ও দীক্ষার বিষয় হল , সে তথ্য যা মানব তথা সৃষ্টিকে স্বার্থক মুহম্মদ (সঃ) রূপ তথা 'নফসে মুত্মাইন' অর্থাৎ নিস্তরঙ্গ আমিত্ব লাভে ফানা- বাকা বা প্রভুর জাতে বিলয় প্রাপ্ত হয়ে অখন্ডে মিলন লাভে সফলকাম করে। আর এ কারণে নিঃসন্দেহে বলা যায় যে, তার এ নামকরন পূর্ণ স্বার্থকতা পেয়েছে।

Content on this page requires a newer version of Adobe Flash Player.

Get Adobe Flash player

Content on this page requires a newer version of Adobe Flash Player.

Get Adobe Flash player

Content on this page requires a newer version of Adobe Flash Player.

Get Adobe Flash player

Content on this page requires a newer version of Adobe Flash Player.

Get Adobe Flash player

Content on this page requires a newer version of Adobe Flash Player.

Get Adobe Flash player

Content on this page requires a newer version of Adobe Flash Player.

Get Adobe Flash player

Content on this page requires a newer version of Adobe Flash Player.

Get Adobe Flash player

Content on this page requires a newer version of Adobe Flash Player.

Get Adobe Flash player

Content on this page requires a newer version of Adobe Flash Player.

Get Adobe Flash player

Content on this page requires a newer version of Adobe Flash Player.

Get Adobe Flash player

Content on this page requires a newer version of Adobe Flash Player.

Get Adobe Flash player

Content on this page requires a newer version of Adobe Flash Player.

Get Adobe Flash player

Content on this page requires a newer version of Adobe Flash Player.

Get Adobe Flash player

দরবারের পালিত দিবস সমূহ ঃ- ১০ মাঘঃ গাউছুল আজম হযরত মাওলানা ছৈয়দ আহমদ উল্লাহ মাইজভান্ডারী (কঃ) এর 'বার্ষিক ওরছ মোবারক'***** ২২ চৈত্রঃ হযরত গাউছুল আজম ছৈয়দ গোলামুর রহমান বাবা ভান্ডারী মাইজভান্ডারী (কঃ)'র বার্ষিক ওরছ মোবারক***** ২৫ অগ্রহায়নঃ ওয়াছেলে গাউছুল আজম- হযরত আমিনুল হক ওয়াছেল মাইজভান্ডারী (কঃ) এর 'বার্ষিক ওরছ মোবারক'***** ৭ পৌষঃ দুল্হায়ে হযরত- ছাহেবুল অজুদুল কোরআন- হযরত মৌলানা ছৈয়দ ছালেকুর রহমান শাহ রাহে ভান্ডারী (কঃ) এর 'বার্ষিক ওরছ মোবারক'***** ৮ কার্তিকঃ আজাদে মোজাদ্দেদে জমান- হযরত মৌলানা ছৈয়দ মোহাম্মদ আব্দুল মালেক শাহ রাহে ভান্ডারী (কঃ) এর 'খোশরোজ শরীফ' ***** আগষ্ট ২৯ < > নবী দিবস - প্রতিষ্ঠাতা: রাহে ভান্ডার কধুরখীল দরবার শরীফের বর্তমান সাজ্জাদানশীন - আয়োজক: রাহে ভান্ডার কধুরখীল দরবার শরীফ ***** ২২ জ্যৈষ্ঠঃ আজাদে মোজাদ্দেদে জমান- হযরত মৌলানা ছৈয়দ মোহাম্মদ আব্দুল মালেক শাহ রাহে ভান্ডারী (কঃ) এর 'বার্ষিক ওরছ মোবারক'***** ৭ ভাদ্রঃ রাহে ভান্ডার কধুরখীল দরবার শরীফে 'মজমুয়া ওরছ মোবারক'***** ৭ চৈত্রঃ 'মহাত্মা সম্মেলন' Universal Sufi Festival